শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

যান্ত্রিক এই জীবনে সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে ছুটে চলার প্রবনতায় ঘুম কমে গিয়েছে প্রায় সকলেরই। পরিসংখ্যান অনুসারে, বিশ্বের প্রায় ৪৫ শতাংশ মানুষ ঘুমের নানা সমস্যায় ভুগছেন। বিশেষজ্ঞদের মতে, উচ্চরক্তচাপ, ডায়বিটিস, কিডনির দীর্ঘমেয়াদি অসুখের মূলে রয়েছে কম ঘুম। ঘুমের সমস্যা এখন বিশ্বব্যাপী।

 

ব্যস্ততার যুগে ঘুম মাথায় উঠেছে বর্তমান প্রজন্মের। যার থেকে বাসা বাঁধছে নানা রোগ। সুস্থতার সঙ্গে ঠিক কী সম্পর্ক রয়েছে ঘুমের, বয়স অনুযায়ী কি ঘুমের পরিমাণ ও পদ্ধতি আলাদা হয়? কী বলছেন চিকিৎসকেরা?

 

সাধারণ ভাবে দিনে ৮ ঘণ্টা ঘুমোনোর কথা বলা হয়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বয়স, শারীরিক অবস্থা, কাজকর্ম, ওজন-সহ একাধিক বিষয়ের উপরে নির্ভর করে ঘুমোনোর সময়। এই বিষয়ে একটি সময়সূচি দিয়েছে স্লিপ ফাউন্ডেশন (Sleep Foundation)। প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ঘুমের সময় সাত থেকে নয় ঘণ্টা। অনেকেই কম ঘুমোনো নিয়ে রীতিমতো গর্ব করে থাকেন। অনেকে বলেন, এটি দীর্ঘ দিনের অভ্যাস হয়ে দাঁড়িয়েছে। কয়েক ঘণ্টা ঘুমোলেই হয়ে যায়।

কম ঘুমের সমস্যা কী কী হতে পারে?

ঘুম কম হলে অবসাদ বাড়ে। মনঃসংযোগ কমে যায়।
নিয়ম করে ৭–৮ ঘণ্টা না ঘুম হলে ধৈর্য্য কমে যায়। মেজাজ চড়ে যায়।
ঘুমের মধ্যে গ্রোথ হরমোন বেশি নিঃসৃত হয়। তাই বাচ্চার কম ঘুমোলে তাদের ঠিক মতো বৃদ্ধি হয় না।

ঘুমের মধ্যে নাক ডাকার সমস্যা থাকলে রক্তচাপ বাড়ে। হৃদরোগ ও মস্তিষ্কে রক্ত ক্ষরণের আশঙ্কা দেখা দেয়।

সারা পৃথিবীর ৪ শতাংশ মানুষের স্লিপ অ্যাপনিয়া আছে।

প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ঘুমের বিশেষজ্ঞ-টিপস

১. নির্দিষ্ট সময় তৈরি করে নিন ঘুমতে যাওয়া এবং ঘুম থেকে ওঠার।

২. দিনের বেলায় ঘুমনোর অভ্যেস যদি থাকে তবে, তা ৪৫ মিনিটের বেশি যেন না হয়।

৩. ঘুমের আগেই মদ্যপান করবেন না। ঘুমনোর আগে কিছুতেই ধূমপান করবেন না।

৪. ঘুমনোর আগে কখনই ব্যায়াম করবেন না। অত্যধিক মশলাদার খাবার খেয়ে ঘুমোতে যাবেন না।

৫. আরামদায়ক বিছানায় ঘুমোন।

অনলাইনে ডক্টর ও টেলিমেডিসিন সেবা এখন খুব সহজ

যেকোন ডাক্তারের অ্যাপয়েন্ট পেতে গুগল প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করুন 

স্বাস্থ্য বিডি মোবাইল অ্যাপ অথবা ভিজিট করুন স্বাস্থ্য বিডি ওয়েবসাইট এবং বিস্তারিত জানতে কল করুন +8801400-040404 নম্বরে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *