শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ডিম্বাশয় ক্যান্সারের প্রাথমিক লক্ষণ এবং উপসর্গ অনুপস্থিত বা খুব সূক্ষ্ম হতে পারে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় এই রোগ সনাক্তকরণ এবং নির্ণয় করতে কয়েক মাস লেগে যায়, এজন্য একে নীরব ঘাতক বলা হয়।

বর্তমান গবেষণায় দেখা যায় যে এই ক্যান্সারটি ফ্যালোপিয়ান টিউব থেকে শুরু হয়ে ডিম্বাশয়গুলোতে চলে আসে। ডিম্বাশয়ের ক্যান্সারের জন্য চিকিৎসা সাম্প্রতিক বছরগুলিতে আরও কার্যকর হয়ে উঠেছে, রোগটি প্রাথমিক পর্যায়ে সনাক্ত করা গেলে চিকিৎসা ক্ষেত্রে ভাল ফলাফল পাওয়া যায়।

প্রথমদিকে ডিম্বাশয় ক্যান্সারের খুব কমই লক্ষণ দেখা যায়। রোগটি বাড়ার সাথে সাথে কিছু লক্ষণ দেখা দিতে পারে।

এর মধ্যে রয়েছে-

  • পেট ফোলা বা চাপ অনুভূত হওয়া
  • পেটে বা শ্রোণীতে (পেলভিস) ব্যথা
  • খাওয়ার সময় খুব দ্রুত পরিপূর্ণ বোধ করা
  •  ঘন ঘন প্রস্রাব করা

এই লক্ষণগুলি ক্যান্সার নয় এমন অনেক ক্ষেত্রেও ঘটতে পারে। যদি এই লক্ষন গুলো কয়েক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে অবিরাম হয়ে থাকে তাহলে দ্রুত চিকিৎসক এর সাথে যোগাযোগ করা প্রয়োজন।

ঝুঁকি হ্রাসকারী কিছু বিষয়-

  • গর্ভাধারণ
  • জন্ম নিয়ন্ত্রণ বড়ির ব্যাবহার
  • টিউবাল লিগেশন (যার মাধ্যমে ফ্যালোপিয়ান টিউবগুলি স্থায়ীভাবে অবরুদ্ধ বা সরিয়ে ফেলা হয়)
  • ডিম্বাশয় অপসারণ
  • লো ফ্যাট ডায়েট

দীর্ঘ গবেষণার মাধ্যমে বিশেষজ্ঞরা এমন সিদ্ধান্তে উপনীত হয়ে থাকেন যে উপরর বিষয় বা ফ্যাক্টর গুলো ডিম্বাশয় ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়ক ভূমিকা রাখতে পারে।

অনলাইনে ডক্টর ও টেলিমেডিসিন সেবা এখন খুব সহজ

যেকোন ডাক্তারের অ্যাপয়েন্ট পেতে গুগল প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করুন স্বাস্থ্য বিডি মোবাইল অ্যাপ অথবা ভিজিট করুন https://shasthobd.com/ এবং বিস্তারিত জানতে কল করুন +8801400-040404 নম্বরে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *